HealthMen

Covid19 Vaccine in Pregnancy

করোনার ভ্যাক্সিনগুলো কীভাবে দেহে কাজ করে তার উপর ভিত্তি করে বিশেষজ্ঞদের বিশ্বাস, গর্ভবতী নারীরা এসব ভ্যাক্সিন নিলে কোনো স্বাস্থ্যঝুঁকি হওয়ার সম্ভাবনা কম। তবে বর্তমানে গর্ভবতী নারীদের মধ্যে COVID-19 ভ্যাক্সিনগুলোর কতটুকু সুরক্ষিত সে সম্পর্কে সীমিত ডাটা রয়েছে। তাই আরও বেশি গবেষণার প্রয়োজন।

গর্ভবর্তী নারীদের জন্য ভ্যাক্সিন কতটুকু নিরাপদ এ নিয়ে এখনো ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে এবং উপাত্ত সংগ্রহ ও পর্যালোচনা প্রক্রিয়াধীন আছে। তবে আমাদের জন্য সুখবর হচ্ছে, গর্ভধারণের আগে বা গর্ভাবস্থায় প্রাণীর শরীরে Moderna, Pfizer-BioNTech এবং J&J/Janssen ভ্যাকসিন প্রদান করার পর গর্ভবতী প্রাণী বা নবজাতকের কোনও স্বাস্থ্যঝুঁকির প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

CDC এবং FDA গর্ভাবস্থায় COVID-19 টিকাদান সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ করছে এবং সেই তথ্যটি নিবিড় পর্যবেক্ষণ এ রেখেছে। তথ্যগুলো এখন পর্যন্ত গর্ভবতী ব্যক্তিদের বা তাদের বাচ্চাদের সুরক্ষা সংক্রান্ত কোন উদ্বেগ শনাক্ত করতে পারেনি। এই সিস্টেমে রিপোর্ট করা বেশিরভাগ গর্ভাবস্থা এখনো চলমান রয়েছে, তাই গর্ভাবস্থার ঠিক আগে বা শুরুর দিকে টিকা নেয়া নারীদের জন্য আরও ফলো-আপ ডেটা প্রয়োজন। গর্ভাবস্থা এবং শিশুদের উপর প্রভাব বোঝার জন্য তারা গর্ভাবস্থার সমস্ত ত্রৈমাসিকে(Trimester) টিকা গ্রহণকারীদের উপর গবেষণা অব্যাহত রেখেছে।

Moderna and Pfizer-BioNTech ভ্যাকসিনগুলো mRNA ভ্যাক্সিন যা জীবিত ভাইরাস বহন করে না তাই এই ভ্যাক্সিন থেকে কারও COVID-19 হওয়ার সম্ভাবনাও নেই। এছাড়া, mRNA কখনো গ্রহীতার দেহের DNA এর সাথে ইন্টার‍্যাকশন করে না কারণ DNA এর অবস্থান কোষের ভেতর নিউক্লিয়াসে। আর, mRNA এর পক্ষে নিউক্লিয়াসে ঢুকে ব্যক্তির DNA এর কোন জেনেটিক পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব নয়।

J & J / Janssen COVID-19 ভ্যাকসিন একটি ভাইরাল ভেক্টর ভ্যাকসিন, এর অর্থ এটি আমাদের কোষগুলোতে গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশাবলী সরবরাহ করতে একটি ভিন্ন ভাইরাস (ভেক্টর) এর একটি সংশোধিত সংস্করণ ব্যবহার করে। একই ভাইরাল ভেক্টর ব্যবহারকারী ভ্যাক্সিনগুলো গর্ভাবস্থার সমস্ত ত্রৈমাসিকে(Trimester) গর্ভবতীদের দেওয়া হয়েছিল। গর্ভাবস্থার সাথে সম্পর্কিত কোনও বিরূপ ফলাফল যা অনাগত শিশুকে প্রভাবিত করে এমন কোন কিছুর সম্পৃক্ততা এখনো পাওয়া যায় নি।

এদিকে যুক্তরাজ্যের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা (NHS) সেখানকার সকল গর্ভবতী মায়েদের ভ্যাক্সিন নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। কারণ, গর্ভাবস্থায় করোনা সংক্রমণ অন্যান্যদের থেকে বেশি ঝুকিপূর্ণ। গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে, করোনা ভ্যাক্সিন গর্ভাবস্থার কোন ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে না। WHO অনুমোদিত যেকোন ভ্যাক্সিন গর্ভাবস্থায় দেওয়া যাবে, তবে Oxford-Astrazeneca এর ভ্যাক্সিনে রক্ত জমাট বাধার কিছু দুর্লভ সমস্যা রয়েছে। সেজন্য, Pfizer-BioNTec, Moderna এর ভ্যাক্সিন গ্রহনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

কখন ভ্যাক্সিন নেওয়া উচিৎ?
গর্ভাবস্থার কোন সময় ভ্যাক্সিন নিলে অসুবিধা হবে এধরনের কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি, তবে গর্ভের প্রথম ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত ফিটাস/বাচ্চার বৃদ্ধির জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, তাই গাইনি ডাক্তারগণ ১২ সপ্তাহের পর ভ্যাক্সিন নিতে পরামর্শ দিয়েছেন। অন্যদিকে ৩৩ সপ্তাহের আগে ভ্যাক্সিন দেওয়া গেলে ভালো। অর্থাৎ ১৩-৩৩ সপ্তাহের মধ্যে ভেক্সিন দেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন অবসটেট্রিসিয়ানগণ। গর্ভাবস্থার পূর্ণ সময় ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে থাকা জরুরি। ভ্যাক্সিনগ্রহণ বা এসংক্রান্ত আরও যেকোন প্রয়োজনে আপনার ডাক্তারের সরনাপন্ন হন। অনলাইনে ডাক্তার দেখাতে হেলথমেন এ ইনবক্স করুনঃ m.me/healthmen.services বা ডায়েল করুনঃ 01311040092

তথ্যসূত্রঃ
https://www.cdc.gov/coronavirus/2019-ncov/vaccines/recommendations/pregnancy.html#:~:text=Based%20on%20how%20these%20vaccines,19%20vaccines%20in%20pregnant%20people.

https://www.nhs.uk/conditions/coronavirus-covid-19/coronavirus-vaccination/pregnancy-breastfeeding-fertility-and-coronavirus-covid-19-vaccination/

Covid19 Vaccine in Pregnancy
বিস্তারিত যেকোন প্রয়োজনে ইনবক্স করুন হেলথমেন এ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
X